হে প্রিয়তমা,
নিরবে-নিভৃতে তুমি সদা
জাগ্রত মম হৃদয়ের মাঝে।
অহোরাত্র তুমি জাগ্রত,
হে প্রিয়তমা!
আমি তোমায় দেখি,
দিগন্ত বিস্তৃত সবুজ তেপান্তরে,
অখন্ড আকাশের গাঢ় নীলিমায়!
কৃষ্ণচূড়ার রক্তিম আভার মাঝে,
গোধূলির রাঙা সাঁঝে-
বকুল শাখের স্নিগ্ধ সুবাসে
আমি তোমায় খুঁজে পাই,
ওগো প্রিয়তমা!
রংধনুর রঙিন রংচ্ছটায়,
নক্ষত্রখচিত আকাশের বিশালতায়,
কাঠগোলাপের মায়াবী রঙে
আমি তোমায় অনুভব করি!
পৌষের শিশিরসিক্ত ভোরের
রৌদ্রজ্জ্বল ঘাসের মাঝে-
দখিনা হাওয়ার ঝিরিঝিরি প্রবাহে,
চৈত্রের প্রচন্ডতায়, আমি খুঁজে
পাই তোমার চিরচেনা অনুরাগ!
আমি তোমার অস্তিত্ব
অনুভব করি,
শিউলি ঝরা শারদ প্রভাতে-
প্রজাপতির চঞ্চল ডানায়
আর কাশফুলের কোমল স্পর্শে!
সমুদ্রের অতলস্পর্শী গভীরতায়
আমি খুঁজে ফিরি,
তোমার ভালোবাসার গভীরতা!
প্রিয়তমা,
মহাবিশ্বের বিশালতার কাছে
হার মেনেছে তোমার
ভালোবাসার বিশালত্ব!


শাহরিয়ার রিফাত সরকার
আমি শাহরিয়ার রিফাত সরকার। ঢাকার সরকারি বিজ্ঞান কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী। অতি ক্ষুদ্র এক পাঠক। লিখতে ভালোবাসি, ভালোবাসি দেশমাতাকে!