ইতিহাসনামায় আপনাকে স্বাগতম

তন্দ্রাহীন ঘুম - লিখেছেন - স্রোডিঞ্জারের বিড়াল



আমি জেগে থাকি খুব যত্ন করে, একটু একটু করে।
সময়টাকে সাথে রাখি পোষা বেড়ালটির মতো।ধীর পায়ে হেঁটে যাই সেখানে যেখানে জীবন আমাকে গল্প শোনায় জীবনের।
জেগে থাকার মুহূর্তগুলো ক্রমশ বৈচিত্র্যময়,ব্যঞ্জনাময় আলোর খেলা।আলো কী করে ঘাস,লতাপাতা গাছ হলো আমি জানিনা,জানিনা জীবন মৃত্যুর মানে।

আমি জেগে থাকি খুব যত্ন করে, একটু একটু করে।কান পেতে শুনি শব্দগুলো বাতাসের কান হয়ে।আমার চেনা শহর,সড়ক,বন্দর ধীরে ধীরে শব্দ পাঠায়।এগুলো খবর,কবিতা ও জীবনের গান।
আমি জেগে থাকি ঘুমের অপেক্ষায়।হতে পারে ঘুমই জীবনের আরেক নাম।তাই ঘুম ভালো লাগে।খারাপ লাগেনা জীবন ও।জীবন বৈচিত্র্যময়,ব্যঞ্জনাময় ঘুমের আয়োজন।

জেগে থাকার আলোমাখা মুহূর্তগুলো আমাকে নিয়ে যায় রঙিন সাদাকালো দৃশ্যে।সেই আলোয় দেখি নিজেকে এবং অন্যদের।মনে হয় মঞ্চে অভিনীত সব,নিখুঁত শেষ দৃশ্যটি পর্যন্ত।
আমার পা হেটে নিয়ে যায় আমাকে। জেগে থাকার মুহূর্তগুলো কেটে যায় নীরব একজন সাথীর সাথে।আমি ধীরে ধীরে তাকিয়ে দেখি আমার পায়ের নিচে বিশাল এক পৃথিবী।আমার নীরব পথচলার সাথী।

আমি জেগে থাকি খুব যত্ন করে, একটু একটু করে।
সময় একটা পোষা বেড়াল,কাছেই বসে থাকে।খাবার পেলে খুশি হয়ে হাত চেটে দ্যায়।
জেগে থাকি ঘুমাবো বলে।খুব আয়োজন ঘুমাবো বলে।
আমি জেগে থাকি,জেগে থাকি, আবার ঘুমোলে জাগব বলে।


 

স্রোডিঞ্জারের বিড়াল
আমি স্রোডিঞ্জারের বিড়াল হয়ে বন্দি আছি বাক্সে,পটাশিয়াম সায়ানাইডের সাথে।