ইতিহাসনামায় আপনাকে স্বাগতম

হতভাগা শিক্ষা! - লিখেছেন - মোহাম্মদ নাসিম


বেশ কিছু দিন আগের কথা।কলেজে যাচ্ছি বাসে করে।মগবাজার মোড়ে বাস জ্যামে আটকে আছে।গরমে অবস্থা খারাপ।সামনের সিটের সাথে মাথা ঠেকিয়ে মাথা নিচু করে আছি।ব্রাশ নিবেন ব্রাশ? মাথা উচু করে তাকিয়ে দেখি এক হকার ব্রাশ বিক্রি করতেছে।এতে নতুনের কি? নাহ নতুনের কিছুই নাই,আবার মাথা নোয়ায় দিলাম সিটের সাথে।নানা ভাবে ব্যাখ্যা করে যাইতেছে এই ব্রাশ হ্যান ত্যান।হাতে নিয়া দেখতে পারেন...etc etc...গরমের তীব্রতা একটু বেশিই ছিলো।বাসের সামনে দিকে দাড়িয়ে থাকা এক মোটা আংকেল চিল্লান দিয়া বলে উঠলো "ওই বেটা নাম"। হকারটা একটু থামলো,একজন ব্রাশ দেখতেছিলো হয়তো ।উনি হয়তো কিনলোও একটা,খেয়াল করি নাই।একটু পর আবার জোরে কইরা চিল্লান দিয়া বললো ভাই আর কেউ নিবেন?তখন সামনে থাকা ওই মোটা আংকেলটা একটু জোরেশোরে  আবার বলে উঠলো, "ওই বেটা তোরে নামতে কইছি না?গরমের ভিতর ঘ্যান ঘ্যান শুরু করছোস।" হকারটা উত্তর দিলো "You can't talk to me like this" 


মাথা উঠাইলাম,নতুন কিছু। হকারের মুখে ইংরেজি শব্দ।এতক্ষন খেয়াল করি নাই হকার ভাইটাকে।তাকায় দেখলাম ২৭-২৮ বছরের একভাই।পরোণে একটা চেক শার্ট(অনেক দিন ব্যাবহৃত, রঙ জ্বলে গেছে) একটা জিন্সের প্যান্ট,কাধে একটা ব্রাশ ভর্তি সাইড ব্যাগ।মোটা আংকেলটা বলে উঠলো "মূর্খের  বাচ্চা আবার ইংরেজিতে কথা কয়"।মূর্খ বলবেন না,আমি মাস্টার্স কমপ্লিট করেছি,বললতে বললতে সাইড ব্যাগের পিছন চেন থেকে একটা ফাইল বের করলো,যাতে বাদামী রঙের কাগজে ঠাসা।দেখলাম বাসের সবাই একটু নড়েচড়ে বসলো।মাস্টার্স করছিস তো ব্রাশ বেচোস ক্যা?কেউ চাকরি দেয় না।যেইখানেই যাই ৬-৭ লাখ টাকা চায়,মামা খালু নাই যে তদবির করবে। ফ্যামিলির কাছ থেকেও টাকা চাইতে পারি না। তাই ইন্টারভিউ দেই আর টাকার দায়ে ব্রাশ বেচি। আংকেলটা বলে উঠলো রেজাল্ট ভালো থাকলে চাকরি এমনি হয়।ছেলেটা ফাইল আংকেলের দিকে বারায় দিয়া বললো দেন একটা চাকরি।আংকেলটা মুখ ঘুরায় সামনের দিকে নিয়ে বললো আসিস দিমুনি।গাড়ি জোরে জোরে শব্দ করা শুরু করলো,দেখলাম  জ্যাম ছেড়ে দিছে,ভাইয়াটাও নেমে গেলো।
আমিও আবার মাথা নোয়ায় ফালাইলাম।
উফফ কি গরম
#গন্তব্য_কলেজ


 

মোহাম্মদ নাসিম
যান্ত্রিক শহরকে ভবঘুরে চোখে দেখা আমি,খুজে বেড়াই সকলের সামনে থাকা অবহেলিত দৃশ্যের বর্ণন।