ইতিহাসনামায় আপনাকে স্বাগতম

ঈদের হাটে রাঙা মামা ও আমি - লিখেছেন - শাহনেওয়াজ ইবনে শাহজাহান



ঈদের হাট ব্যাপারটা বলার সাথে সাথেই হয়তো আমাদের সকলের মনেই ভেসে ওঠে ওই চিরচেনা রূপ ; গরুর হাম্বা ও ছাগলের ভ্যা ভ্যা। আমার ঈদের হাট নিয়ে অনেক কল্পনা ছিল। ছোট বলে বাবা কখনই আমাকে হাটে নিয়ে যেত না। একবার রাঙা মামা বলল, " চল ছোটু এবার তোকে ঈদের হাটের মজা দেই।"  আমিও রাজি হলাম। এবারই আমার এক অদ্ভুত অভিজ্ঞতা হল।

 

রাঙা মামা ও আমি উপস্থিত হলাম এক বিরাট হাটে। সেদিন হাট ছিল পুরো জমজমাট অবস্থা। চারদিকে হাম্বা, হাম্বা, ভ্যা..ভ্যা...আওয়াজ শোনা যাচ্ছিল। আর বিক্রেতাদের সে কি হাঁক ডাক। এইযে ভাই এদিকে আসেন, স্যার ঐ যে এই যে স্যার, হাটের সেরা গরু ইত্যাদি ইত্যাদি। একের পর এক গরু আমাদের চোখ ধাঁধিয়ে দিচ্ছিল। লম্বা লম্বা শিং, মোটা মোট ক্ষুর। ঠিক সেই সময় দেখা হলো হাটের রাজা "বাদশাহ্" এর সাথে। শিং যেন তার দু হাত লম্বা, লেজ ছিল রাঙা মামার অর্ধেক। তখনই হল মজা। আমি পড়া ছিলাম একটা লাল রঙের টি-শার্ট। বাদশাহ্ তো আমাকে তার লম্বা শিং দিয়ে গুতো দিতে যাচ্ছিল। আমি পেছন দিকে উল্টে পরে গেলাম। রাঙা মামা বলল, "আরে বোকা ও তোকে কিভাবে গুতো দিবে ও তো আটকানো।" এরপর আমি ভয়ে ভয়ে উঠলাম আর বাদশাহকে ছেড়ে অন্য গরু দেখতে গেলাম। মামা বলল, "ছোটু তুই কি জানিস ও তোকে কেন ধাওয়া করেছিল?" আমি বললাম নাতো মামা কিছু তো আঁচ করতে পারছি না। মামা বলল,"ওরা লাল রঙকে ওদের শত্রু মনে করে। আর তুই তো লাল টি-শার্ট পরা। তাই তোকে ধাওয়া করতে যাচ্ছিল।"

 

এরপর আর কোনো গরুই পছন্দ করতে পারছিলাম না। দোটানায় পড়ে গেলাম। তাই ছাগলের দিকে চলে গেলাম। সেখান থেকে একটা মধ্যম সাইজের ছাগল কিনলাম আর অনেক ঘোরাঘুরির পর লালচে বাদামি রঙের একট গরু কিনে হাসিল কমপ্লিট করে বাড়ির দিকে রওো দিলাম। আমার হাতে ছিল ছাগল আর রাঙা মামা ও আরেকজন সোনা মামা গরু নিয়ে যাচ্ছিল। তারা যখন গরু নিয়ে যাচ্ছিল তখন গরুর সে কি হাম্বা হাম্বা ডাক।

 

পথিমধ্যে আরেক ঘটনা ঘটল। সম্মুখীন হলাম গরু খোঁজার মত সমস্যায়। এটি অবশ্য কোরবানির সময়ে পরিচিত ঘটনা সবার সাথেই কোনো না কোনো ভাবে ঘটে। রাঙা মামার হাত থেকে গরু ছুটে গেল। আমরাও দৌড়ালাম গরুর পিছন পিছন। প্রায় আধা মাইল দৌড়ানোর পর ধরতে পারলাম পাজি গরুটাকে। বেশ ক্লান্ত হয়ে গিয়েছিলাম। এরপর বাড়ি ফিরলাম হাঁপাতে হাঁপাতে। গরুটাকে বাড়ির কাঁঠাল গাছের সাথে বেঁধে রেখে সবাই গোসল করে নিলাম। অতঃপর বিশ্রাম নিতে শুয়ে পড়লাম আর ভাবছিলাম হাটের কথা। জীবনে এই অভিজ্ঞতা প্রথম। তাই একটু এক্সাইটেট ছিলাম। যাই হোক, মামা ছিল বলে অভিজ্ঞতাটা একটু বেশিই জমজমাট ছিল।
শাহনেওয়াজ ইবনে শাহজাহান
শিবচর নন্দকুমার মডেল ইনষ্টিটিউশনের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র। ভালোবাসে ক্রিকেট খেলতে আর wresting দেখতে।