ইতিহাসনামায় আপনাকে স্বাগতম

ভ্রান্ত-সুর - লিখেছেন - মৌরি হক দোলা









-তুমি আমায় এত ভালোবাসো কেন?

ছোট্ট একটা দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে হৈমন্তিকা আবিরকে মৃদুস্বরে জিজ্ঞেস করল। বারান্দার গ্রীলের ওপাশের গাছটায় ঘন সবুজ পাতার আড়াল থেকে দুটি পাখি দেখা যাচ্ছে। কিছুক্ষণ পরপর তারা এ ডাল থেকে ও ডালে, ও ডাল থেকে ঐ ডালে..... উড়ে উড়ে বেড়াচ্ছে। আবির এতক্ষণ অপলক চোখে তাদের দিকেই তাকিয়ে ছিল। হাতে ছিল এক কাপ গরম চা। চায়ের কাপে ঠোঁট ছোঁয়াতেই তার গরম স্পর্শে আবিরের ধ্যান ভাঙল। কানের কাছে বারবার ভেসে আসতে লাগল.....'তুমি আমায় এত ভালোবাসো কেন?'!!!


গরম চায়ের কাপে আনমনে চুমুক দিতে দিতে হৈমন্তিকার দ্বিতীয় জিজ্ঞাসা, 'কি হল? বললে না?'

আবিরের ঠোঁটের কোণে মৃদু হাসির ঝলক। 'হৈম, তুমি এখনো আমাকে ভালোবাসতে পার নি! তাই না?'

আবিরের কথায় হৈমন্তিকার বুকের মধ্যে কেমন যেন নাড়া দিয়ে উঠল! বিন্দু বিন্দু জলেরা এসে জমা হতে শুরু করল দু'চোখের কোণে। এই অতি ভালো মানুষটার সামনে আর এক সেকেন্ডও বসে থাকার সামর্থ্য নেই তার। চুপচাপ সে চায়ের কাপ হাতে উঠে এল।

'গোলাপী রঙের শাড়িটাতে আজ বেশ লাগছে তোমাকে!'
মনের অন্তঃস্থল থেকে ঠেলে বেরিয়ে এল কথাটা। আবির আবারো সেই স্বভাবসুলভ মুচকি হাসিটা মুখে ফিরিয়ে আনল। সে জানে, ঘরের দোর এখন প্রায় ঘন্টাখানেকের জন্য বন্ধ হয়ে যাবে। এই সময়টুকুনিতে উত্তরের ঘরটায় কেউ যেতে পারবে না। হৈমন্তিকাও বেরিয়ে আসবে না। সে কাঁদবে। আপন মনে কাঁদবে! কিছুক্ষণ সে নিজের সাথে একান্ত সময় কাটাবে!

আবির অবিশষ্ট চাটুকু শেষ করল। পুব আকাশে মেঘেরা খেলা করছে। কালো কালো মেঘ। হয়তো বৃষ্টি হবে! প্রবল ধারার বৃষ্টি! কিংবা, হয়তো....খেলতে খেলতেই বিদায় নেবে কালো মেঘেদের দল!


***

নাহ! কালো মেঘের দল খেলতে খেলতেই বিদায় নিল না। হঠাৎ তাদের পেরিয়ে ঝমঝম বৃষ্টিকণা ছুটে এল। কি অপরূপ প্রকৃতি! বৃষ্টির ফোঁটাগুলো একত্রে ঝমঝম করে এসে পড়ছে গাছের সবুজ পাতায় পাতায়। সে পানি গড়িয়ে পড়ছে ঠিক তার নিচের পাতায়, সেটি থেকে তার নিচের পাতায়, ঐটে থেকে তার নিচের পাতায়, তারপর..... সেখান থেকে মৃত্তিকা শোষণ করে নিচ্ছে সেই রস, কিছুটা কান্ডের অভ্যন্তর থেকে আর খানিকটা সেই কান্ডেরই অচল দেহের বহিরাবরণ বেয়ে!

হৈমন্তিকার বালিশও রসে চুপচুপ। সে রস হৈমন্তিকার দু'নয়নের। ক্রমাগত ফুঁপিয়ে ফুঁপিয়ে কান্নার শব্দ শোনা যাচ্ছে। ভিতরে যন্ত্রণা! গভীর যন্ত্রণা!

সে সেই স্বল্পক্ষণ অথচ গভীর-অতীতের আবর্তন থেকে বেরিয়ে এসেছে বহু আগেই। কিন্তু অতীত তাকে ঘিরে এখনো ঘুরছে- চক্রাকার ঘূর্ণনে। তাই বারেবারে ভেসে আসে, 'তুমি এখনো আমাকে........'

আবির উত্তরের ঘরের দোরের কাছে এসে কিছুক্ষণ দাঁড়ায়। চুপচাপ। তারপর আবারো ফিরে যায় বৃষ্টির কাছে। হঠাৎ দীর্ঘশ্বাস বেরিয়ে আসে- 'আজ সব পেয়েও আমি কিছুই পাই নি! কারণ তুমি তো এখনো আমাকে.....'



কালো মেঘের উপস্থিতিতে কখন যে সন্ধ্যে হয়েছে বোঝাই যায়নি! একটুপরে আরো গাঢ় আঁধার নামবে। নিকষকালো আঁধার। তখন আর মেঘগুলোকে আলাদা করা যাবে না! শুধু শোনা যাবে বৃষ্টির সুর- যে সুরের তাল, লয়, ছন্দ-সমস্তকিছুর সাথে জড়িয়ে আছে অনেকগুলো ভ্রান্তি !


লেখকঃ মৌরি হক দোলা

ইতিহাসনামার একজন সাব এডিটর।স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসেন,ভালোবাসেন সে স্বপ্ন নিয়ে বেঁচে থাকতে।