ইতিহাসনামায় আপনাকে স্বাগতম

স্বপ্নের কথা - লিখেছেন - জিন্নাত আরা


আমরা সকলেই স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসি। স্বপ্নের রঙিন শহরে ঘুরতে ভালোবাসি। আমরা যতক্ষন স্বপ্নের রাজ্যে থাকি ততক্ষণ নিজের জীবন রঙিন রঙিন মনে হয়। স্বপ্ন সুখের হতে পারে, দুঃখের হতে পারে, ভৌতিক হতে পারে। জন্মান্ধ মানুষ বা বধির মানুষও স্বপ্ন দেখতে পারে। তবে তাদের সপ্ন কিন্তু সাদাকালো বা শব্দহীন হয় না। তাদের স্বপ্ন আমাদের মতোই বর্ণিল বা রিনিঝিনি ছন্দময়। এমনকি জন্ম থেকে প্যারালাইজড রোগীও স্বপ্নে দৌড়াতে বা খেলতে দেখেন তাকে।


যখন একটি সুখের বা আনন্দের স্বপ্ন দেখাকালীন স্বপ্নে বাধা পরে কিংবা নিদ্রা ছুটে যায় তখন আমরা আফসোস করি।

বলি,"ইসস! যদি আরেকটু দেখতে পারতাম!" এবং পুনরায় সেই সুখের স্বপ্ন দেখার আশায় আমরা চোখে নিদ্রার ভর আনার চেষ্টা করি।


আমরা স্বপ্ন ঠিকই দেখি। তবে আমরা কি জানি? যে, স্বপ্ন কি?


স্বপ্ন অর্থ হলো, নিদ্রিতাবস্থায় প্রত্যক্ষবৎ কোন কিছুর অনুভব। স্বপ্ন কি তা আরো ভালো ভাবে খুলে বলা যায়। স্বপ্ন হলো অতীতের কিছু স্মৃতি, অভিজ্ঞতা বা কোন ঘটনার সাথে একেবারে নিকট বর্তমানের কিছু স্মৃতি, অভিজ্ঞতা, ভাবনা বা কোন ঘটনার সংমিশ্রনে একটি লাইভ ছোটগল্প।


রবীন্দ্রনাথের ভাষায় ছোটগল্প হলো,'শেষ হইয়াও হইলো না শেষ।' সুতরাং স্বপ্ন হলো ছোটগল্পের উপর ভিত্তি করে তৈরি লাইভ ছোট নাটিকা। যার কোন উপসংহার নেই।


আর লাইভ নাটিকাটির পরিচালক হলো আমাদের 'সাব-কনশাস মাইন্ড বা অবচেতন মন'। আমরা ঘুমালেও আমাদের সাব-কনশাস মাইন্ড বা অবচেতন মন ঘুমায় না। সে জাগ্রত থেকে আমাদেরকে প্রতি মুহুর্তে জীবন্ত রাখে।


সাব-কনশাস মাইন্ড তার সংগহে থাকা মুহুর্ত, অভিজ্ঞতা, ভাবনা আর স্মৃতিগুলোকে ইচ্ছেমতো জুড়ে দিয়ে তৈরি করে এক পর্বের একটি সারমর্ম, সারাংশ, উপসংহারহীন নাটিকা। যিনি স্বপ্ন দেখেন সাব-কনশাস মাইন্ড তাকেই প্রধান চরিত্রটি দেয়।


স্বপ্ন দেখার কারণ- আমরা সারাদিন যা যা করি এবং যা নিয়ে চিন্তা করি, তা নিদ্রা অবস্থায় পুনরায় আমাদের সাব-কনশাস মাইন্ড বা অবচেতন মন উপসংহারহীন নাটিকা হিসেবে দেখায়।


স্বপ্নের মাধ্যমে আমরা অনেক পূরণ না হওয়া ইচ্ছাও পূরণ করতে সক্ষম। যা কখনো আমাদের বাস্তবে পাওয়া সম্ভব না, তা আমরা স্বপ্নের মাধ্যমে পেয়ে থাকি। স্বপ্নের মাধ্যমে যা কখনো হবার নয়, তাও হতে পারে।


আমরা স্বপ্ন ঘুমের মধ্যেই কেবল দেখি। ঘুম দুই প্রকার। র‍্যাপিড আই মুভমেন্ট স্লিপ (REM sleep) অর্থাৎ ঘুমের সময় চোখ নাড়াচাড়া করা এবং নন র‍্যাপিড আই মুভমেন্ট স্লিপ (non REM sleep) অর্থাৎ যখন ঘুমের সময় চোখ স্থির থাকে।


আমরা স্বপ্ন দেখি মূলত REM sleep-এর সময়। স্বপ্নকে আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে পারি না তবে আধোঘুমের স্বপ্নকে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। একে লুসিড ড্রিম বলে।


স্বপ্ন বিভিন্ন প্রকার হতে পারে। যেমন স্বপ্নের প্রকৃতির উপর ভিত্তি করে স্বপ্ন দুই প্রকার-১| জেগে স্বপ্ন ও ২| ঘুমিয়ে স্বপ্ন।


জেগে স্বপ্ন দেখা মানে গভীরভাবে কিছু নিয়ে চিন্তা করা। আমরা দৈনন্দিন জীবনে অনেক কিছু নিয়েই চিন্তা বা ভেবে থাকি৷ দূরে কোন দম্পতিকে পাশাপাশি বসে গল্প করা অবস্থায় দেখলে, আমরা মনে মনে গভীর চিন্তা করে সেই দম্পতির জায়গায় নিজেকে ভাবি। কিংবা টিভিতে কোন সিরিয়ালে নায়ক-নায়িকাদের স্থানে আমরা নিজেদেরকে ভেবে থাকি। এটি মূলত 'waking up dreaming' নামে প্রচলিত।


ঘুমিয়ে স্বপ্ন দেখার বিষয়ে আমরা সকলেই মোটামুটি জানি। এটি সাব-কনশাস মাইন্ড বা অবচেতন মনের সাহায্যে দেখা হয়। এটি 'sleeping dreams' নামে পরিচালিত।  



+লেখক: জিন্নাত আরা

অবসরে লেখালেখি করতে পছন্দ করেন পাশাপাশি ছবি আঁকেন।

ফেসবুক আইডি:আইডি