ইতিহাসনামায় আপনাকে স্বাগতম

হালফেতির কালো গোলাপ - লিখেছেন - আশরাফুল আলম প্রান্ত

ভালোবাসার মানুষকে শ্রেষ্ঠ উপহার দিতে কে না চায়? আর সেই উপহার যদি হয় কালো গোলাপ, তাহলেতো আর কথাই নেই! কিন্তু মুশকিলটা হলো প্রেমিকার জন্য কালো গোলাপ কিনতে গেলে পকেটের ভয়াবহ জোর থাকা চাই। কেননা এর জন্য আপনাকে উড়ে যেতে হবে তুরস্কের উরফা প্রদেশের হালফেতি গ্রামে!



ইউরোপের কিছু দেশে জেনেটিক ম্যানিপুলেশনের দ্বারা কৃত্রিম কালো গোলাপ ফোটানো হলেও, শুধুমাত্র হালফেতি গ্রামেই ফোটে বিশ্বের একমাত্র কালো গোলাপ। বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যায় যাবার আগে বলে রাখা ভালো যে, প্রকৃতপক্ষে কোন গোলাপই কালো হয়না। এমনকি হালফেতির গোলাপটি খালি চোখে কালো দেখালেও, তীব্র আলোয় যে কেউ আসল রহস্যটি ধরতে পারবেন।

অবাক করা ব্যপার হলো, কারা গুল (তুর্কি ভাষায়: কালো গোলাপ) যখন ফোটে তখন কিন্তু লাল রং নিয়ে ফোটে। তারপর বসন্তের মাঝামাঝি এসে, রং পাল্টাতে পাল্টাতে, গাঢ় বাদামি থেকে নয়নকালো রং ধারণ করে। কালো গোলাপ, হালফেতি গ্রামে Endemic, অর্থাৎ বিশ্বের অন্য কোথাও এর পক্ষে বাঁচা সম্ভব নয়, বাঁচলেও গাছে ফুটবে টুকটুকে লাল গোলাপ ফুল।
খুব রহস্যময় না? এর উত্তরটা আছে হালফেতির পবিত্র ভূমিতে। আর সেখান থেকেই বিষাদের গল্প শুরু..


তুরস্কের উফরা অঞ্চলে জড়িয়ে আছে ইসলাম, ক্রিশ্চান, জিউ আর আরমেনিয়দের পূণ্য স্মৃতি। ধারণা করা হয়, এখানে ইবরাহীম আ. কে আগুনে ফেলা হয়, যা এখন একটি পুকুর। ইয়াকুব আ. কেও নাকি এখানে পরীক্ষা করা হয়েছিলো। আরমেনিয়দের ভাষার জন্মও নাকি এখানে। হালফেতিতেও বসতি ছিলো আরমেনিয়দের। পরে অটোমানদের বর্বরতায় তারা গ্রাম ত্যাগ করে বা স্থানীয় মানুষের সাথে মিশে যায়।
তবে কালো গোলাপ ফোটার রহস্য আরো দারুণ। এই অঞ্চলের আবহাওয়ার বৈচিত্র্য আর ইউফেট্রিস নদের বিপুল ভূগর্ভস্থ পানির কারনে মাটির কিছু মৌলিক গুণাগুণ অর্জিত হয়েছে। যা এই গোলাপের পিগমেন্ট পরিবর্তনের মূল কারণ। তবে দিন দিন এই গোলাপ হারিয়ে যাচ্ছে।

তো, কি ঠিক করলেন? যাবেন নাকি তুরস্কের উরফায়। আমি কিন্তু কখনো যাবোনা। গেলেও যাবো পুষ্পশূণ্য শীতকালে।
কেননা, 2001 সালের পর থেকে তুষারঝরা শীতকালে প্রচন্ড অসহায়ভাবে দিন কাটান হালফেতির গ্রামবাসী। কারণ তাদের উর্বর সবুজ শস্য আর পেস্তা ক্ষেত তলিয়ে গেছে বাঁধের পানিতে। তুরস্ক সরকার এক বিতর্কিত বাঁধ নির্মাণ করে, ইউফেট্রিস নদে। ফলে ধীরে ধীরে তলিয়ে যায় 'আসল' হালফেতি। বর্তমান হালফেতি হলো নতুন হালফেতি, যা বর্তমানে এক দুর্গম ট্যুরিস্ট স্পট।


 সরকারি প্রোপাগান্ডায় হাজারো পর্যটক কালো গোলাপ, পারফিউম আর স্যুভিনিয়র কিনতে যায়, সবুজ হারানো রূক্ষ গ্রামে।
কিছু লিরা আয় করতে গ্রীষ্মকাল শেষ হওয়া পর্যন্ত পথে থাকে শিশুরা। এটা সেটা বিক্রি করে। ফসলের জৌলুস নেই। বৃদ্ধরা অতীত হাতরায়। তাদের তলিয়ে যাওয়া পিতৃভূমি এখন অন্যের বিনোদনের স্থান। যার নাম, ডুবন্ত শহর।
গোলাপের মতো, গ্রামবাসীও বিষাদে ভাসে, শীতের ভাবনায়..