ইতিহাসনামায় আপনাকে স্বাগতম

কবিতাঃমৃত্যুর শেষ প্রহরে - লিখেছেন - শিহান


আমি মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়ে
একাকীত্বে ভরা সূর্যস্নান করতে চাইনি।
আমি চাইনি একা হাঁটতে
এই মৃত শহরের ফুটপাত ধরে,
আমি চাইনি একা ঘরে আমার বন্দী জীবন।

আমি চেয়েছিলাম শেষবার এই
শহরের কোলাহল মাখা ফুটপাত দিয়ে হাঁটবো,
ভীড় খুব কাছাকাছি হাঁটবে আমার,
আরো জোরে স্পর্শ করবে হাত।

আমি চেয়েছিলাম আবার কোনো এক ক্লান্ত বিকেলে
বাস স্টপে তিন নম্বার বাসের জন্যে দাঁড়িয়ে থাকা
ঘামে ভেজা নারীর মুখ দেখে মুগ্ধ হতে,
হঠাৎ ভীড় ঠেলে পরিচিত মুখ খুঁজে নিতে।

এই ঝাপ ফেলা চায়ের আড্ডাখানা
ভাজি-পুরির দোকান ছাড়া গলির মোড়
খালি পরে থাকা হালের কফিশপ-
এইসব কিছুই চাইনি আমি।

আমি চেয়েছিলাম শেষ সূর্য উদয়-অস্তে
তোমাদের ঝাপটে জড়িয়ে রাখতে।
আমি একাকীত্বের বাসর চাইনি
বন্ধুত্বে মুখরিত জ্যোৎস্না রাত চেয়েছিলাম।

আমি ভয়ে ভরা হাহাকার মাখা চিৎকার চাইনি
মা-বাবার হাসি-ভরা মুখের স্পর্শ চেয়েছিলাম।
আমি কারো করুণা মিশেল জানাযা চাইনি
শুধু বাঁচার মতো মরতে চেয়েছিলাম।

আমি শেষবার ফিরে পেতে চেয়েছিলাম
ধুলোপড়া মায়ের আঁচল;
ক্লান্ত-বিরক্তিমাখা মায়ের মলিন মুখ,
বাবার ঘামেভেজা শার্টের পকেট কিংবা
ভাইদের সাথে উঠনে শেষ ক্রিকেট ম্যাচ।

আমি মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়ে
একাকীত্বে জীবনের শেষ সূর্যাস্ত দেখতে চাইনি।

+লেখক: শিহান
একজন রাত ভালোবাসা স্বপ্নবাজ মানুষ, যে চাঁদহীন রাতে স্বপ্ন বুনে ক্যানভাসে। মধ্যরাতে দিনের যান্ত্রিকতা মুছে যার ঘরে স্বপ্নের বাসর বসে।
ফেসবুক আইডি:আইডি লিংক