ইতিহাসনামায় আপনাকে স্বাগতম

অপ্রতিরোধ্য চীন - লিখেছেন - শরফুদ্দিন চিশতী


আজ করোনা আক্রান্ত এই পৃথিবী দিশেহারা আর এর বিশেষ প্রভাব পড়ছে অর্থনীতির উপর !এমনকি যুক্তরাষ্ট্রের মতো পরাশক্তিও বিপর্যস্ত আর তা থেকে রক্ষা পেতে বরাবরই সকলের মতো অসহায় !!

এতে অনেকেই দায়ী করছেন চীনকে! আবার কেউ কেউ তো যুদ্ধ প্রত্যাশাও করছেন !!কি ভয়ানক ব্যাপার ! তাহলে হয়তো ভাববেন চীন তো ভাই সাপের মুখে ?নাহ! চীন এই যুদ্ধ অনেক আগেই জয় করে নিয়েছে।

অবাক হলেও সত্যি, সমস্ত পরাশক্তি এক চীনের উপর অসহায় আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য !কারণ চীনের অর্থনীতি কৌশল আর দূরদর্শীতা সত্যিই বিস্ময়কর! আর তাতেই এক কৃষিপ্রধান দেশ আজ বিশ্ব অর্থনীতির শীর্ষ দেশ যুক্তরাষ্ট্রের ঘাড়ে শ্বাস ফেলছে!এমনকি জাপান, কোরিয়া, ভারতসহ এশিয়া ইউরোপের প্রায় 80 শতাংশ দেশ যেকোনো কাঁচামালের জন্য চীনের উপর নির্ভর করে! যুক্তরাষ্ট্রও বছরে প্রায় 300 বিলিয়ন ডলার আমদানি করে এই চীন থেকে!



কেনো আর কীভাবে এক সময়কার কৃষিপ্রধান দেশ চীন আজ অভাবনীয় উচ্চতায়?1970 র দিকে চীনে শ্রমিক বেতন খুবই অল্প ছিলো আর সরকারের করনীতি ছিলো ভিন্ন এবং বিদেশী বিনিয়োগকারীদের জন্য তা  সুবিধাজনক ও সাশ্রয়ী !!




অন্যান্য দেশের তুলনায় অতি অল্প খরচে পণ্য উৎপাদন সম্ভব বলে অনেক কোম্পানি চীনে ঘাঁটি গড়ে তোলে !বাস্! চীনকে আর পেছনে তাকাতে হয়নি।বরং পাঁচ দশকেই তারা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দেয়! 1980 র মধ্যে প্রায় 500 কোম্পানি চীনে ব্যবসা শুরু করে!আজ চীনা এক শ্রমিকের পারিশ্রমিক গড়ে 12400 USD যেখানে এক সময় তা ছিল 140 USD !!!শুধু তাই নয়, চীন সবচেয়ে বেশি মেডিসিন উৎপাদনকারী দেশ।

তাই লকডাউনের সময় সারা বিশ্বে মেডিসিনের ব্যাপক ঘাটতি দেখা যায়!বুঝা যাচ্ছে নিশ্চয়, কেনো চীনকে বয়কট করা প্রায় অকল্পনীয়??
একবার নিজ ঘরটাই দেখুন না, চীনা পণ্যে ভরপুর !এর অন্যতম কারণ চীনে অল্প খরচে যেকোনো পণ্য উৎপাদন সম্ভব যা নিঃসন্দেহে লাভজনক !শুধু তাই নয়, চীন ইতোমধ্যে দক্ষিণ চীন সাগর দখল করা শুরু করে দিয়েছে আর এই সাগর অন্যান্য দেশগুলোর বাণিজ্যের অন্যতম পথ!




তবে কি চীন একচ্ছত্র অধিপতি হওয়ার লক্ষ্যে এগুচ্ছে? হয়তো খুব শীঘ্রই যুক্তরাষ্ট্রকে পেছনে বড়সড় ধাক্কাই দিতে যাচ্ছে চীন!



লেখক: শরফুদ্দিন চিশতী
জগতের মায়া কাটাতে ব্যস্ত, সাধারণ এক কিশোর :)  
ফেসবুক আইডি :ফেসবুক আইডি লিংক